https://www.coxsbazarbanglanews.com

https://www.coxsbazarbanglanews.com

প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন রক্ষায় ৯দফা দাবি সেচ্ছাসেবী সংগঠন( এনভায়রনমেন্ট) প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারক লিপি প্রদান

Recent Tube

প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন রক্ষায় ৯দফা দাবি সেচ্ছাসেবী সংগঠন( এনভায়রনমেন্ট) প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারক লিপি প্রদান



সেন্টমার্টিন দ্বীপ রক্ষায় ৯ দফা দাবীতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি 
 
প্রেস বিজ্ঞপ্তি 
কক্সবাজারের প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন রক্ষায় ৯ দফা ও উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়নের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছে পরিবেশ বিষয়ক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘এনভায়রনমেন্ট পিপল’।   গতকাল  (বৃহস্পতিবার) দুপুরে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন এর মাধ্যমে এ স্মারকলিপি দেয়া হয়। এ সময় চ্যানেল আই এর প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশন কক্সবাজারের উপদেষ্ঠা সরওয়ার আজম মানিক, এনভায়রনমেন্ট পিপল এর প্রধান নির্বাহী রাশেদুল মজিদ, রিপোর্টাস ইউনিটি কক্সবাজারের সভাপতি এইচ এম নজরুল ইসলাম, পরিবেশ কর্মী সাইফুল ইসলাম ও সিরাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। 
স্মারকলিপিতে ৯ দফা দাবীর মধ্যে রয়েছে যথাক্রমে বিদ্যমান প্রতিবেশগত সংকটাপন্ন এলাকা (ইসিএ-তে ৯টি পয়েন্টের নিষিদ্ধ কার্যক্রম রোধ কল্পে) ‘ইসিএ’ আইন কঠোর ভাবে প্রয়োগ করা, দ্বীপে প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করা, দ্বীপে পর্যটক ও পর্যটন সংশ্লিষ্ট যাবতীয় কর্মকান্ড এবং পর্যটকদের আচরণ নিয়ন্ত্রণ ও নির্ধারণ করা, ছেড়াদ্বীপে পর্যটক নিষিদ্ধ করা, দ্বীপ ও জাহাজের অপচনশীল বর্জ্য দ্বীপ থেকে সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি স্থায়ী বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা, দ্বীপে নিরাপদ খাবার পানির উৎস্য নিশ্চিত করা, পরিবেশ ছাড়পত্র ব্যতিত হোটেল ও রির্সোট তৈরী বন্ধ করা, উচ্চ আদালতের মামলার রায় বাস্তবায়ন করা এবং স্থানীয় মানুষের জীবন-জীবিকা (দ্বীপের বাসিন্দাদের মতামতসহ), জীববৈচিত্র্য ও দ্বীপ রক্ষায় সুষ্পষ্ঠ নীতিমালা তৈরী করা।


এনভায়রনমেন্ট পিপল এর প্রধান নির্বাহী রাশেদুল মজিদ বলেন, ‘দূষণের কারণে দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন এখন হুমকিতে। ৯ দফা ও উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়ন করা না হলে ধীরে ধীরে দ্বীপটির অস্তিত্ব বিপন্ন হবে। এখনি এ বিষয়ে আমাদের পদক্ষেপ নেয়া জরুরী।’  এর আগে ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি সংগঠনটির ৪৫ জন স্বেচ্ছাসেবী দ্বীপটিতে পরিচ্ছন্নতা অভিযান, দ্বীপের পরিবেশ রক্ষায় স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা, পর্যটক ও স্থানীয়দের মধ্যে সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিলি, মানববন্ধন এবং দ্বীপের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা পরিদর্শন করেন। 

Post a Comment

0 Comments