https://www.coxsbazarbanglanews.com

https://www.coxsbazarbanglanews.com

নিম্নআয়ের মানুষদের ৬ মাসের খাদ্য ও অর্থ দেবে সরকার, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

Recent Tube

নিম্নআয়ের মানুষদের ৬ মাসের খাদ্য ও অর্থ দেবে সরকার, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা



সিবিবিএন বার্তা       কোভিড -১৯ (করোনা ভাইরাস)মোকাবেলায় সমাজের নিম্ন আয়ের মানুষের সহায়তায়বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেনপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ  বুধবার ( ২৫ মার্চ)জাতির উদ্দেশে দেয়া এক ভাষণে একথা বলেন তিনি। 

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেনবিনামূল্যে ভিজিডি,ভিজিএফ এবং ১০ টাকা কেজি দরে চাল সরবরাহকর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। একইভাবে বিনামুল্যে ওষুধ চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেনআমাদের শিল্প উৎপাদনএবং রপ্তানি বাণিজ্যে আঘাত আসতে পারে। এইআঘাত মোকাবিলায় আমরা কিছু আপৎকালীন ব্যবস্থাগ্রহণ করেছি। 

শেখ হাসিনা বলেনরপ্তানিমুখী শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্যআমি  হাজার কোটি টাকার একটি প্রণোদনা প্যাকেজঘোষণা করছি। এই তহবিলের অর্থ দ্বারা কেবল শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা যাবে।

এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংক ইতোমধ্যে ব্যবসায়-বান্ধববেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীবলেনকেন্দ্রীয় ব্যাংক আগামী জুন মাস পর্যন্ত কোনগ্রাহককে ঋণ খেলাপি না করার ঘোষণা দিয়েছে।রপ্তানি আয় আদায়ের সময়সীমা  মাস থেকে বৃদ্ধিকরে  মাস করা হয়েছে। একইভাবে আমদানি ব্যয়মেটানোর সময়সীমা  মাস থেকে বৃদ্ধি করে  মাসকরা হয়েছে। মোবাইলে ব্যাংকিং- আর্থিকলেনদেনের সীমা বাড়ানো হয়েছে।

শেখ হাসিনা আরো বলেনবিদ্যুৎপানি এবং গ্যাসবিল পরিশোধের সময়সীমা সারচার্জ বা জরিমানা ছাড়াজুন মাস পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এনজিওগুলোরঋণের কিস্তি পরিশোধ সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে।

আজ সমগ্র বিশ্ব এক অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে চলছেউল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেনযেকোন কঠিনপরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আমাদের সরকার প্রস্তুতরয়েছে। আমরা জনগণের সরকার। সব সময়ই আমরাজনগণের পাশে আছি। আমি নিজে সর্বক্ষণ পরিস্থিতিরউপর নজর রাখছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেনআমাদের এখন কৃচ্ছতা সাধানেরসময়। যতটুকু না হলে নয়তার অতিরিক্ত কোনভোগ্যপণ্য কিনবেন না। মজুদ করবেন না। সীমিতআয়ের মানুষকে কেনার সুযোগ দিন।

আমরা খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ।  বছর রোপাআমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। সরকারিগুদামগুলোতে ১৭ লাখ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যশস্যমজুদ রয়েছে।

এছাড়া বেসরকারি মিল মালিকদের কাছে এবংকৃষকদের ঘরে প্রচুর পরিমাণ খাদ্যশস্য মজুদ আছে।চলতি মওসুমে আলু-পেঁয়াজ-মরিচ-গমের বাম্পারফলন হয়েছে।

কৃষক ভাইদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীবলেনকোন জমি ফেলে রাখবেন না। আরও বেশিবেশি ফসল ফলান। দুর্যোগের সময়ই মনুষ্যত্বেরপরীক্ষা হয়। এখনই সময় পরস্পরকে সহায়তা করারমানবতা প্রর্দশনের।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেনআবারও বলছি স্বাস্থ্যবিধিমেনে চলুন। সকলে যার যার ঘরে থাকুনভালোথাকুনসুস্থ থাকুননিরাপদ থাকুন।

Post a Comment

0 Comments