https://www.coxsbazarbanglanews.com

https://www.coxsbazarbanglanews.com

শহরে সুগন্ধায় অবৈধ দখল স্হাপনা উচ্ছেদ অভিযানে বাধা, লাঠিচার্জ গুলি টিয়ারগ্যাস আহত -১৫ জন - coxsbazarbanglanews.com - CBBN

বিজ্ঞাপন দিতে পারেন !

TRUE

Page Nav

HIDE

br

HIDE

Grid

GRID_STYLE
FALSE

Classic Header

{fbt_classic_header}

সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

latest

ads by cbbn

শহরে সুগন্ধায় অবৈধ দখল স্হাপনা উচ্ছেদ অভিযানে বাধা, লাঠিচার্জ গুলি টিয়ারগ্যাস আহত -১৫ জন

এন আলম আজাদ,কক্সবাজার কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন কলাতলী সুগন্ধা পয়েন্টের ৫২ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়...




এন আলম আজাদ,কক্সবাজার

কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন কলাতলী সুগন্ধা পয়েন্টের ৫২ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়ে ব্যবসায়ী ও পুলিশের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে সংবাদকর্মীসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেলের দিকে(১৭ অক্টোবর) বুল্ডোজার ও অন্যান্য সরঞ্জাম দিয়ে অবৈধ দখলদারদের দোকানপাটগুলো গুড়িয়ে দেয়ার মুহূর্তে এ ঘটনা ঘটে।এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে পুলিশ টিয়ারগ্যাস ও ফাঁকাগুলি করেছে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা।ঘটনার পর থেকে সেখানে উত্তেজনা ও থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৫২ জন দখলদার উচ্ছেদে সেখানে অভিযান চলছিল।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সচিব আবু জাফর রাশেদ, কক্সবাজার সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ শাহরিয়ার মোক্তার, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি শেখ মুনির উল গিয়াস অভিযানের নেতৃত্বে রয়েছেন।

ঘটনাস্হল থেকে কক্সবাজার সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ শাহরিয়ার মোক্তার বলেন, অভিযানে গিয়ে তারা ব্যবসায়ীদের প্রতিবন্ধকতায় পড়েন।এসময় ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ দেখায় ও অভিযানকারীদের লক্ষ্যকরে ইট পাটকেল ছুঁড়লে পরিস্থিতি অবনতির দিকে ধাবিত হয়।অবৈধ ব্যবসায়ীদের সংগঠিত এ বিক্ষোভ থামাতে পুলিশ ফাঁকা গুলি, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছুঁড়ে।

উল্লেখ্য, গত ১ অক্টোবর কলাতলীর সুগন্ধা পয়েন্টের ৫২ জনের স্থাপনা উচ্ছেদে হাইকোর্টের দেওয়া রুল ও স্থগিতাদেশ আপিল বিভাগ খারিজ করে দেয়।ভূমি মন্ত্রণালয় ও রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে সাড়াদিয়ে ঐ দিন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে ভার্চুয়াল আপিল বেঞ্চ এ রায় দেন।

৫২ ব্যক্তির স্থাপনা উচ্ছেদে কোনো বাধাঁ না থাকায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে সুগন্ধা পয়েন্টের এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে যায়।

জানাগেছে,এসব অবৈধ স্থাপনা পৌরসভার ট্রেড লাইসেন্সধারী ব্যক্তিরা পরিচালনা করে আসায় কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ২০১৮ সালের ১০ এপ্রিল উচ্ছেদের নোটিশ দেয়। পরে জসিম উদ্দিনসহ ৫২ জন এর বিরুদ্ধে একটি রিট আবেদন করেন। একই বছরের ১৬ এপ্রিল হাইকোর্ট রুল জারি করে আদেশটিতে স্থগিতাদেশ দেন।

এর বিরুদ্ধে ভূমি মন্ত্রণালয় ও রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করলে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ শুনানি শেষে হাইকোর্টের রুল ও স্থগিতাদেশ খারিজ করে দিয়ে অবৈধ স্হাপনা উচ্ছেদে রায় ঘোষনা করেন।

No comments