https://www.coxsbazarbanglanews.com

https://www.coxsbazarbanglanews.com

১৪৪ধারা ভঙ্গ করে দরগাহ পাড়া আমিন বাহিনী জমিদখল ও বাড়ি নির্মাণ

Recent Tube

১৪৪ধারা ভঙ্গ করে দরগাহ পাড়া আমিন বাহিনী জমিদখল ও বাড়ি নির্মাণ



নিজস্ব প্রতিবেদক :
আদালতের আদেশ অমান্য করে ১৪৪ধারা ভঙ্গ করে নালিশীয় জমিতে বাড়ি নির্মাণ করছে, কক্সবাজার সদর ঝিলংজা ইউনিয়নের দরগাহ পাড়ার বাসিন্দা আব্দু শুক্কুরের ছেলে আমিনুল হক আমিন।
আমিনুল হক দেশের প্রচলিত আইনের তোয়াক্কা না করে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে অর্থের জোরে তাহার গঠিত বাহিনী দিয়ে অপরের জমি দখল করে হাঁসের খামার, ছাগলের খামার, গরুর খামার নির্মাণ করে আসছে। তাহার গঠিত বাহিনী দিয়ে বাক খালী নদীতে ড্রেজার মেশিন দিয়ে দিন দুপুরে বালি উত্তোলন করে আসছে। আমিনুল হক বাহিনীর সামনে কেউ প্রতিবাদের সাহস পাইনা। বিগত ০৭/০২/২১ ইংরেজি তারিখে জৈনেক আব্দুল আজিজ তাহার পৈতৃক নাল জমিতে আমিন বাহিনী হানা দিয়ে দিনদুপুরের খামার নির্মাণের জন্য  জমি দখলে নেয় এবং নির্মাণ শ্রমিক দিয়ে কাজ শুরু করে। আব্দুল আজিজ স্থানীয় জন প্রতিনিধিকে অবহিত করলে তিনি কোন প্রকার সুরাহা দিতে না পারায়, নিরুপায় হয়ে পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
পুলিশ সুপার আইনশৃঙ্খলা রক্ষার কক্সবাজার মডেল থানাকে নির্দেশ প্রদান করেন। প্র :সংগত উক্ত নালিশীয় জমি আদালতে বিচারাধীন ও যার মামলা নং ৪৮/১৯৮৭, এবং এর অনুবলে এম আর মামলা ১৪৪২/২০ দায়ের করলে
৩০/১০/২০ ইংরেজি তারিখ যার স্মারক নং ০৫.২০.২২০০.১২৮.১৯.০১০.১৬.১৭৩৫ ফৌজদারী কার্যবিধি নালিশীয় জমি শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য আদালত যাহা সংলিষ্ট মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা উভয় পক্ষকে নোটিশ দিয়ে অবহিত করেন।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে দখলবাজ আমিনুল হক বাহিনীর প্রধান আমিনসহ তাহার গঠিত সিন্ডিকেট দিয়ে গত ১৩/০২/২১ ইংরেজি তারিখে জৈনেক আব্দুল আজিজের বসতঘরে হামলা চালিয়ে আজিজসহ ৪জনকে মারাত্মক জখম করে তফসিলযুক্ত নালিশীয় জমি দখলে নেয় ।
এ হামলায় আজিজের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় কক্সবাজার মডেল থানায় একখানা এজাহার দায়ের করেন। আবদুল আজিজের এজাহারের ভিত্তিতে কক্সবাজার মডেল থানার পুলিশ দফায় দফায় অভিযান ও তদন্ত শুরু করে।
কিন্তু পরিতাপের বিষয় যে, পুলিশ যখন অভিযানে যায় আমিন বাহিনী পালিয়ে যায় এবং চলে আসলে পুনরায় দখলকৃত জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে।
এলাকায় বর্তমানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে যেকোন সময় অঘটন ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসীর দাবি।
প্রতিবেদককে, এলাকার স্হায়ী বাসিন্দারা আব্দুল জলিল, মোঃসেলিম, জাফর আলম বলেন, আমিনুল হক আমিন বাহিনী এখানে কোন জমিজমা নেই। সমিতির নাম ব্যহার করে ওরা ১১জনের সিন্ডিকেট বাহিনী নিয়ে এলাকার নিরহ মানুষদের জমিজমা বাগিয়েছেন। আমাদের পুর্ব পুরুষের নালিশীয় দখল জমি যাহা আরএস, বিএস খতিয়ান চুড়ান্ত ঐ জমিসহ সন ভিক্তিক বনদোস্তীর নাম দিয়ে দখল করে লক্ষ লক্ষ টাকার মাটি বিক্রি করে আসছে। আমাদের ফসলি জমিতে আমিন বাহিনী হানা দেওয়ায় আমরা এখন জমি হারা খানাখন্দক, নালাডোবা, যুদ্ধবিপদস্ত এলাকার পরিণত হয়েছে যাহা দৃশ্যণীয়।
আমাদের তপশীলযুক্ত জমি নিম্নরুপ :
আরএস ৬৫০, ৮৬৮ নং খতিয়ান, আরএস ১৭৬৪,১৭৬৫,১৭৬০ দাগের তুলনামূলক বিএস ৩৮২,৩৮৬,ও ০১নং খতিয়ানের বিএস ৩০৮১,৩০৮৪,৩০৮৫ দাগের অন্দর ০.৩১ একর জমি।
এলাকাবাসী আরও বলেন, উপরোক্ত নালিশীয় জমির আমিন বাহিনীর কোন জমি নেই। শুধুমাত্র সিন্ডিকেট বাহিনী নিয়ে জমি দখল করে জমির মাটিগুলো বিক্রি করে আসছে।  বর্তমানে প্রায় ৩০ একর জমি দখল করে এভাবে অনাচার অত্যাচার করে আসছে।
গোপন সুত্রে জানা যায়, আমিনুল হক আমিন  গোপনে  মাদক পাচার করে আসছে তাহার গঠিত সিন্ডিকেট বাহিনী নিয়ে ইতিপূর্বে তাহার আপন ভাই ইয়াবাসহ গ্রেফতার হয়েছিল প্রশাসনের কাছে। মাদক , ভূমিদখল, বাকখালী নদীতে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালি উত্তোলন ও মাটি বিক্রি এ আমিন বাহিনীর প্রধান কাজ।
উক্ত বাহিনীর আশ্রয় প্রশ্রয় দিচ্ছে এমর্মে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির অভিযোগ উঠেছে।
এলাকাবাসীর দাবি , আমিনুল হক আমিন বাহিনীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ অতি জরুরী।
অন্যথায়, এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্ট হয়ে যেকোন মূহুর্তে অঘটন ঘটতে পারে।

Post a Comment

0 Comments